আজ  শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৮

আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় অঙ্গীকার নতুন প্রধান বিচারপতির

image-14305-1517724874

অনলাইন ডেস্ক ঃ দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে সুপ্রিমকোর্টের নতুন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, আইনের শাসন এবং বিচারপ্রার্থী মানুষের কষ্ট লাঘবে বার ও বেঞ্চের মধ্যে সমন্বয় থাকা প্রয়োজন।

বার ও বেঞ্চকে একটি পাখির সঙ্গে তুলনা করে তিনি বলেন, একটি পাখির দুটি ডানা আছে। যদি একটি ডানা অচল হয়, তাহলে পাখিটি উড়তে পারে না।

রোববার সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতি ও অ্যাটর্নি কার্যালয়ের পক্ষ থেকে দেয়া সংবর্ধনাকালে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘সুপ্রিমকোর্ট যেন সংবিধানের কাঠামোর মধ্যে থেকে সংবিধান অনুযায়ী তার নিজ দায়িত্ব পালন করেন, সেটিও আমি নিশ্চিত করতে চেষ্টা করব। আমাদের এমনভাবে আদালতের ভাবমূর্তি গড়ে তুলতে হবে, যেন আদালত প্রাঙ্গণে প্রবেশ করার সঙ্গে সঙ্গে শক্তিমান-দুর্বল, ধনী-গরিব- সবার মধ্যে এই বিশ্বাস জন্মে যে তারা সবাই সমান। এবং আদালতের কাছ থেকে শুধু আইন অনুযায়ী তারা ন্যায়বিচার পাবেন। এতে আদালতের প্রতি মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস দৃঢ় হবে।’

বিচারপতি বলেন, ‘মামলার জট আজ আমাদের বড় সমস্যা। এ সমস্যা সমাধানে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।’

বিচারকদের সবচেয়ে বড় শক্তি সততা উল্লেখ করে সৈয়দ মাহমুদ বলেন, বিচারকদের জবাবদিহির জায়গা হচ্ছে নিজের বিবেক। সংবিধান ও দেশের আইন তার একমাত্র অনুসরণীয়। শপথকে দৃঢ়ভাবে ধারণ করে কারও প্রতি অনুরাগ বা বিরাগের বশবর্তী না হয়ে বিচারকাজ পরিচালনা করা হবে তার দায়িত্ব। বিচারক যদি শুধু তার শপথ অনুযায়ী বিচারকাজ পরিচালনা করেন, তা হলে তার জন্য আলাদা অনুসরণীয় আচরণবিধির প্রয়োজন হয় না।

অনুষ্ঠানে সুপ্রিমকোর্টের হাইকোর্ট ও আপিলে বিভাগের সব বিচারপতি উপস্থিত ছিলেন। বিপুলসংখ্যক আইনজীবীর উপস্থিতিতে সংবর্ধনায় আরও বক্তব্য রাখেন সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম প্রমুখ।