আজ  শুক্রবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৮

আগামী নির্বাচন যুদ্ধাপরাধী, আগুন সন্ত্রাসী ও জঙ্গীবাজদের প্রতিরোধ যুদ্ধ : ত্রাণ মন্ত্রী মায়া চৌধুরী

Maya chouduri 2

আরাফাত আল-আমিন :
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া (বীর বিক্রম) এমপি বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হচ্ছে যুদ্ধাপরাধী, আগুন সন্ত্রাসী ও জঙ্গীবাজদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ যুদ্ধ। মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তিদের ৭১ এর অনুপ্রেরণায় এ যুদ্ধে সর্বশক্তি দিয়ে লড়াই করতে হবে। বাংলাদেশের মাটি থেকে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাজদের চিরতরে নির্মূল করতে হবে।
শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড নিয়ে প্রচারণামূলক এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন মন্ত্রী। মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম এ কুদ্দুস এর সভাপতিত্বে জনসভায় মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মনজুর আহমেদ মঞ্জু, জহিরাবাদ, ফরাজীকান্দি, ষাটনল, কলাকান্দা, এখলাসপুর, মোহনপুর, ফতেপুর পূর্ব ও ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়নের চেয়ারম্যানগণ এবং দলীয় সভাপতিগণ বক্তব্য রাখেন।
মায়া চৌধুরী আরও বলেন আগামী নির্বাচনে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসতে পারলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা শানিত হবে আর পরাজিত হলে প্রথমেই মুক্তিযোদ্ধারা প্রতিহিংসার শিকার হবেন। মতলব উত্তর উপজেলায় আইটি পার্ক ও ইকোনোমিক জোনের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে ত্রাণ মন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনার দূরদর্শিতায় উপজেলা পর্যায়ে প্রযুক্তি ও বিনিয়োগের প্রসার সম্ভব হয়েছে। প্রতিঘরে বিদ্যুৎ বাংলাদেশের জন্য একটি দূরবর্তী স্বপ্নের মত ছিল উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সাহসী ভূমিকার কারনে এ স্বপ্ন পূরণ হয়েছে।
তিনি বলেন, দেশী বিদেশী চাপ থাকা সত্ত্বেও সরকার যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে জাতিকে কলংকমুক্ত করেছে। ২০১৩ সালে সংগঠিত আগুন সন্ত্রাস ও পেট্রোল বোমা হামলার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে জনাব মায়া চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের মানুষ শান্তিপ্রিয়। কিন্তু যুদ্ধাপরাধীদের সঙ্গে নিয়ে একটি দল দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করায় মানুষ তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে। পরাজয় নিশ্চিত জেনে সে দলটি তখন বাহানা ধরে নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করে নিজেদের অস্তিত্ব শংকার মধ্যে ফেলে দিয়েছে। ত্রাণ মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতি ও উন্নয়ন ভাবনা দেশের মাটিতেই হবে। বিদেশী শক্তি বা বিদেশে বসে কেউ বাংলাদেশের উন্নয়ন ফরমুলা দিলে কাজে আসবেনা।
তিনি আরও বলেন, প্রত্যেক ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দেয়ার পাশাপাশি শেখ হাসিনা প্রত্যেক ঘরে তথ্য প্রযুক্তি পৌছে দিয়েছেন। ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন বাস্তবতা আর বহির্বিশ্ব এখন বাংলাদেশের উন্নয়নকে অবাক বিস্ময়ের সাথে পর্যবেক্ষন করছে। সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় আগামী নির্বাচনে নৌকার পক্ষে সমর্থন অব্যাহত রাখার আহবান জানান মন্ত্রী।