আজ  বৃহঃবার, ২২ অক্টোবর, ২০২০

আসন্ন ঈদুল আযহাকে ঘিরে চাঁদপুর সফরমালীতে জমজমাট গরুর হাট, আয়ের টাকায় ৭৩ টি মসজিদ ও মাদ্রাসা চলছে

    আসন্ন ঈদুল আযহাকে ঘিরে চাঁদপুরে ঐতিহাসিক ও স্বনামধন্য সফরমালীতে জমজমাট গরুর হাট বসেছে।
চাঁদপুর সদর উপজেলা ৩ নং কল্যাণপুর ইউনিয়ন সমাজসেবক সাবেক এমপি মরহুম আলহাজ্ব হারুন অর রশিদ নিজের প্রায় দুই একর জায়গায় ১৯৯৩ সালে সফরমালী এলাকায় গরুর হাট প্রতিষ্ঠা করেন।
এই সফরমালী গরুর হাটটি বর্তমানে পরিচালনা করছেন কল্যাণপুর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি ও মরহুম আলহাজ্ব হারুন অর রশিদের চাচতো ভাই আজিজ খান দুদু।
অত্যন্ত সুনামের সহিত দীর্ঘ বছর যাবত চাঁদপুর-শরীয়তপুর ও বিভিন্ন জেলা থেকে বেপারিরা ট্রাক ও ট্রলার বোঝাই করে গরু এই সফরমালী হাটে এনে বেচাকিনা করে তাদের জীবিকা নির্ভার করছে।
চাঁদপুরে সফরমালী গরুর হাটে প্রতি সপ্তাহে সোমবার ও শুক্রবার মাসে ৮ দিন গরুর হাট বসে।
এই গরুর হাটকে কেন্দ্র করে ক্রয়-বিক্রয়ের সাথে জড়িত থেকে এই এলাকার প্রায় তিন শতাধিক পরিবার জীবিকা নির্বাহ করে আসছে।
এই গরুর হাটে মাসিক আয় দিয়ে চাঁদপুরের প্রায় ৬৪ টি মসজিদের ইমামদের বেতন ৯টি মাদ্রাসা ও এতিমখানায় আর্থিক অনুদান দেওয়া হচ্ছে।
এছাড়া এতিম অসহায় ও হতদরিদ্র মানুষদের আর্থিক সহযোগিতা করা হচ্ছে।
সোমবার দুপুরে সফরমালী গরুর হাটে গিয়ে দেখা যায়,বেপারিরা শত শত গরু হাটে নিয়ে এসে ক্রয়-বিক্রয় করছেন।
করোনা কালীন সময়ে সরকারি নিয়ম মেনে প্রবেশ মুখে জীবানুনাশক টেনেল স্থাপন করে দেওয়া হয়েছে।
ক্রেতারা স্বাচ্ছন্দে এই গরুর হাটে এসে অন্যান্য হাটের চাইতে কম দামে গরু ক্রয় করে ছোট ছোট পিক আপ গাড়িতে উঠিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।
এসময় বেশ কয়েকজন গরুর ব্যবসায়ী জানান, এই সফরমালী গরুর হাটে বিভিন্ন এলাকা থেকে গরু এনে ক্রয়-বিক্রয় করা হচ্ছে। এখানে ৫০ হাজার থেকে শুরু করে দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত দামের সব ধরনের গরু পাওয়া যাচ্ছে।
এই গরুর হাটে সকল ধরনের নিরাপত্তা ভালো থাকায় বিভিন্ন জেলা থেকে ব্যবসায়ীরা এই হাটে গরু এনে বিক্রি করছে। ক্রেতারাও কম দামে নিজেদের চাহিদা মতো গরু ক্রয় করে নিচ্ছে।
ঈদুল আযহা উপলক্ষে এই হাটে অনেক গরু উঠেছে ও ক্রেতাদের অনেক সমাগম লক্ষ্য করা গেছে।
এ বিষয়ে গরুর হাট পরিচালনাকারী আওয়ামীলীগ নেতা আজিজ খান দুদু জানান, সাবেক এমপি মরহুম আলহাজ্ব হারুন অর রশিদের উদ্যোগে এই সফরমালী গরুর হাটে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠাতার ওসিয়ত অনুযায়ী এই গরুর হাটের মাসিক আয় দিয়ে মাদ্রাসা মসজিদ ও এতিমখানায় অনুদান দেওয়া হচ্ছে।
প্রায় দুই একর জায়গায় গড়ে উঠা সফর মালি গরুর হাট অত্যন্ত সুনামের সহিত পরিচালনা করা হচ্ছে। এখানে ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সকল ধরনের সুযোগ সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। এই গরুর হাটটি পরিচালনা করার ক্ষেত্রে সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।

শাহরিয়ার খান কৌশিক, মো,০১৭১৩৬৮৮৯২০