আজ  মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

করোনা ভাইরাস: কখন পরবেন মাস্ক

 

স্বাস্থ্য ডেস্ক |
করোনা ভাইরাস রোগের (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাবের পর বিশ্বজুড়ে মুখে মাস্ক পরার পরিমাণ বেড়েছে। একটি দেশ বা অঞ্চলে ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের তীব্রতার ওপর নির্ভর করে সেখানে মানুষকে মাস্ক পরতে হবে কি-না।
রোববার (০৮ মার্চ) বাংলাদেশে প্রথমবার তিনজন কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)।

মাস্ক পরে এ রোগে আক্রান্ত হওয়া থেকে নিরাপদ থাকা যাবে কি-না, এনিয়ে নতুন বিতর্ক তৈরি হয়েছে।
চীনের আধা স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল হংকংয়ে অধিবাসীদের ভিড় বা জন সমাবেশের স্থানে মাস্ক পরে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।
অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্রে স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বিপরীত পরামর্শ দিচ্ছেন। তারা বলেন, ‘যারা সুস্থ, মাস্ক তাদের ভাইরাস সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচাতে পারবে না। উল্টো বারবার মাস্ক পরা ও খোলার ফলে সেটি ভাইরাসের আধার হিসেবে কাজ করতে পারে। এতে ভাইরাল জীবাণু মাস্কে আটকে আপনি নিজেকে নিজে সংক্রমিত করতে পারেন। মানুষ যা মনে করে, মাস্ক আসলে সে কাজ করে না।’
মাস্ক যাদের পরা উচিত: ‘যারা প্রকৃতপক্ষেই অসুস্থ, তাদের মাস্ক পরা উচিত। এতে তাদের মুখ বা নাক থেকে ভাইরাস বা জীবাণু ছড়ানোর পরিমাণ কমবে। আক্রান্তদের চিকিৎসা দিচ্ছেন, এমন স্বাস্থ্যকর্মীদের মাস্ক পরা দরকার। আতঙ্কিত হয়ে অতিরিক্ত মাস্ক কিনলে, যে ডাক্তার ও নার্সরা সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে ভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধ করছেন, তাদের জন্য মাস্কের সরবরাহ কমে যেতে পারে।