আজ  বৃহঃবার, ২ জুলাই, ২০২০

চাঁদপুরে পুলিশ পরিচয়ে প্রেম,তারপর বিয়ে,অতঃপর আটক

 

20191207_003917চাঁদপুরে পুলিশ পরিচয়ে প্রেম করে এক নারীকে প্রতারণা করে বিয়ে করেছে এক যুবক।
এমন ঘটনা জানাজানি হলে ওই ভূয়া পুলিশ সদস্যকে আটক করে চাঁদপুর সদর মডেল থানা পুলিশ।
শনিবার সকালে উপজেলার উত্তর বালিয়া থেকে তাকে আটক করা হয়।চাঁদপুর সদর মডেল থানা সূত্রে আটক ওই ভূয়া পুলিশ সদস্যের নাম জানা যায় মোঃ রেজাউল করিম(২৪)।সে ঠাঁকুরগাও জেলা সদরের মকবুল হোসেনের ছোট ছেলে।
এ ব্যপারে আটক ওই ভূয়া পুলিশ সদস্য রেজাউল করিম সাংবাদিকদের জানায়,সে গাজীপুরের সখিপুরের যমুনা গ্রুপে ম্যানটেনেন্স বিভাগে চাকরি করতো। তখন মোবাইলে চাঁদপুর সদরের উত্তর বালিয়ার আয়শা আক্তার নামে এক তরুনীর সাথে সক্ষ্যতা হয়।সেই সক্ষ্যতা থেকে পরবর্তীতে প্রেম এবং এরপর দুজনে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয়।কিন্তু আয়শার বাবা তার লেবারের পরিচয় জানলে তাকে মেনে নাও নিতে পারে!ঠিক এমনটি ভেবে সে নিজেকে পুলিশের বড় অফিসার হিসেবে আয়শার কাছে পরিচয় দেয় এবং আয়শাকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে কোর্টে বিয়ে করে নেয়।আর বিয়ের প্রায় ২ মাস পর তার শশুড় বাড়ীর এলাকায় তার ভূয়া পুলিশ সদস্য হওয়ার নাটকটি সবার জানাজানি হলে তাকে চাঁদপুর সদর মডেল থানার এএসআই মোঃ হোসেন মিয়া আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এ ব্যপারে চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(চাঁদপুর সদর সার্কেল) জাহেদ পারভেজ চৌধুরী জানান,আমরা রেজাউলের ভূয়া পুলিশ সদস্য হওয়ার খবরটি নিশ্চিত করছি।সে কোন পুলিশ সদস্যই না।আমরা রেজাউলের সাথে থাকা ব্যাগ তল্লাশী করেও তার ভূয়া পুলিশ সদস্য হওয়ার বিষয়ের সত্যতা পেয়েছি।তার সাথে থাকা ব্যাগ থেকে আমরা পুলিশ কন্সটেবলের পোশাক,ভূয়া আইডি কার্ড,ক্যাপ,বুট জব্দ করেছি।তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।