আজ  বৃহঃবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০

চাঁদপুরে বহুমুখী সমবায় সমিতির সিদ্দিক কোটি টাকা নিয়ে উধাও

  চাঁদপুর আত্মনির্ভরশীল বহুমুখী সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিক বকাউল গ্রাহকের কোটি টাকা নিয়ে উধাও হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।
সাধারণ গ্রাহকের কোটি টাকা আত্মসাৎ করার ঘটনায় ভুক্তভোগীরা প্রতারক সিদ্দিক সকলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ করে।
২০০৯ সালে চাঁদপুর সদর উপজেলার ১২ নং চান্দ্রা ইউনিয়নে আত্মনির্ভরশীল বহুমুখী সমবায় সমিতি ১৩ জন পাটনার নিয়ে এর যাত্রা শুরু করে। ২০১৩ সালে আরো ১৮ জন জনপ্রতি ৩ লক্ষ ২২ হাজার টাকা বিনিয়োগ করে এই সমিতিতে পার্টনার হয়।
এছাড়া চাঁদপুর মতলব পেন্নাই সড়কে ৯০ শতাংশ জায়গা ক্রয় করার নামে ৭৭৫ টি শেয়ার ৫০০০ টাকা করে ৩৮ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা নিয়েছেন এই সমিতির সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিক বকাউল।
গ্রাহকের টাকায় ১ কোটি ৮০ লক্ষ টাকায় বাবুরহাটে ৯০ শতাংশ জায়গা সিদ্দিক ও সমিতির সভাপতি ইউসুফ পাটোয়ারী নামে ক্রয় করে।
দুই বছর যেতে না যেতেই সেই জায়গা তারা গোপনে বিক্রি করে কোটি টাকা আত্মসাৎ করে ঘা ঢাকা দেয়।
আত্মনির্ভরশীল বহুমুখী সমবায় সমিতির দুই অংশের পার্টনার বাখরপুর গ্রামের জামাল গাজী জানায়, দুই অংশের মালিক হয়ে ৬ লক্ষ ৪৪ হাজার টাকা বিনিয়োগ করে পার্টনার হিসেবে যোগ দেই। সেক্রেটারি সিদ্দিক বকাউল ৪৬ শতাংশ জায়গা ১২ লক্ষ টাকা বিক্রি করেও সেই জায়গা দখল দেয়নি।
এছাড়া বাবুরহাটে জায়গা ক্রয় এর নামে শেয়ার বিক্রি করে কোটি টাকা আত্মসাৎ করে প্রতারক সিদ্দিক পালিয়ে গেছে।কার কাছে মোট ২২ লক্ষ টাকা পাবো, সেই টাকার কোন হদিস নেই। গ্রাহকের টাকা জন্য আমরা অসহায় হয়ে পড়েছি সেই টাকা ফেরতের জন্য গ্রাহকরা পার্টনারদের উপর চাপ প্রয়োগ করছে।
আমরা এই প্রতারক সিদ্দিক বকালের বিচার দাবি চাই।
গ্রাহকরা অভিযোগ করে বলেন, চান্দ্রা ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড দক্ষিণ বালিয়া গ্রামের সুনু বকাউলের ছেলে প্রতারক সিদ্দিক বকাউল প্রতারণা করে লাভ দেওয়ার লোভে আমাদের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। কোন টাকা আমাদের ফেরত না দিয়ে সমবায় সমিতি বন্ধ করে পালিয়ে গেছে। এখন সে এলাকা ছেড়ে উধাও হয়ে গেছে। টাকা চাইলে সে ফোন করে জানে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে, আমরা তার বিচার চাই।