আজ  শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

চাঁদপুরে ভুয়া ঘটনাস্থল দেখিয়ে প্রতিপক্ষকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির

চাঁদপুরে ভুয়া ঘটনাস্থল দেখিয়ে প্রতিপক্ষকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
টাকা চেয়ে না পাওয়ায় মতলব উত্তর থানার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডে ছোট হলদা গ্রামে প্রতিপক্ষ খোকন বেপারির উপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে।
এই ঘটনায় দুই পক্ষের মাঝে বাকবিতন্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।
ফরাজিকান্দি ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড বাসিন্দা আহত খোকন বেপারীর ছেলে রফিক বেপারী বাদী হয়ে মতলব উত্তর থানায় আসামি শুকুর আলী, আহমদ আলী, নিজাম, আজমসহ ১০জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন।
সেই মামলা থেকে রেহাই পেতে আসামি আহমদ আলী বাদী হয়ে চাঁদপুর সদর উপজেলার রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড লক্ষীরচর গ্রামের চিরারচরে ভুয়া ঘটনাস্থান দেখিয়ে প্রতিপক্ষ নবীর বেপারী ও আহত খোকন বেপারী গংদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।
মঙ্গলবার দুপুরে মামলার ভুয়া ঘটনাস্থল লক্ষীর চর গ্রামে গিয়ে স্থানীয়দের কাছে হামলা ঘটনা ঘটেছে কিনা এই বিষয়ে জানতে চাইলে তারা বলেন, এই এলাকায় এই ধরনের হামলার কোনো ঘটনা ঘটেনি। তবে টাকা পয়সার ঘটনা নিয়ে মতলব উত্তর থানার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নে খোকন বেপারীর উপর প্রতিপক্ষ শুকুর আলী ও আহমদ আলীরা হামলা চালিয়ে আহত করে।
কিন্তু হামলাকারীরা মামলা থেকে রেহাই পেতে আহমদ আলী বাদী হয়ে রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নে ভুয়া ঘটনাস্থল দেখিয়ে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।
মামলার বাদীরা এর পূর্বে রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নে বসবাস করতেন, বর্তমানে তারা মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নে বসবাস করেন।
চাঁদপুর রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নের ভোটার হওয়ার আহমদ আলী প্রধানীয়া বাদী হয়ে ভুয়া মামলাটি দায়ের করেন। যার মামলা নাম্বার,৪০, তারিখ, ১৯/৩/২০২০।এই ভুয়া মামলাটি তদন্ত করছেন চাঁদপুর মডেল থানার এসআই রাশেদ।
রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার হেদায়েত উল্লাহ জানান, এই ইউনিয়নে কোনো হামলা ঘটনা ঘটেনি। আমরা এ ধরনের কোনো ঘটনা শুনিনি। তবে মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নে হামলার ঘটনা ঘটেছে।

রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান হযরত আলী জানান, আমার ইউনিয়নে কোন হামলার ঘটনা ঘটেনি। যা কিছু হয়েছে মতলব উত্তরে হয়েছে। এই ইউনিয়নে হামলার ঘটনা দেখিয়ে আহমদ আলী প্রধানীয়া মিথ্যা মামলাটি দায়ের করেছেন।
মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড মেম্বার আলাউদ্দিন সরকার জানান, এই এলাকার ছোট হলদিয়া গ্রামের জহিরাবাদ চরমত গুচ্ছ গ্রামের সামনে খোকন বেপারীর উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছিল।
আমি বিষয়টি উভয়পক্ষকে সমাধান করার জন্য বলার পরেও মামলা দিয়েছেন।

এদিকে মতলব উত্তর থানা থানায় এস আই আফছার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে প্রকৃত ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত করেন এবং সাক্ষীদের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।
এসময় সাক্ষীরা পুলিশকে জানান, খোকন বেপারী ছোট ভাই হাসান আলী বেপারী দীর্ঘদিন যাবৎ বিদেশে থাকেন।
কার সাথে দুই ভাইয়ের কোন সম্পর্ক নেই। কিন্তু প্রবাসী হাসান আলী বেপারীর স্ত্রী রোকসানা বেগম খোকন বেপারীর কাছে গিয়ে ২০ হাজার টাকা দিতে বলেন।
কিন্তু খোকন বেপারী টাকা দিতে পারবে না বললেও এর মধ্যে বাক-বিতণ্ডা সৃষ্টি হয়। এই ঘটনায় রোকসানা বেগমের বড় ভাই শুকুর আলী এসে খোকন বেপারী উপর হামলা চালিয়ে তার মাথা ফাটিয়ে দেয় এবং শরীরে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। এ নিয়ে দুই পক্ষের মাঝে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। কিন্তু মামলা থেকে রেহাই পেতে রোকসানা বেগমের ভাই আহমদ আলী ও শুকুর আলী ভুয়া ঘটনাস্থল দেখিয়ে উল্টো আহতদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে। যা কিছু হয়েছে সব মতলব উত্তর থানা ফরাজীকান্দি ইউনিয়নে হয়েছে।
এই বিষয়ে এসআই আফছার জানান, মতলব উত্তর থানা ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের গুচ্ছগ্রামের সামনে হামলার ঘটনায় খোকন বেপারী আহত হয়েছে। এই ঘটনায় প্রতিপক্ষরা রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন ঘটনাস্থল দেখিয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন। প্রকৃতপক্ষে ঘটনাস্থলটি সঠিক নয়, মামলার শুরুতেই তারা মিথ্যা ঘটনাস্থল দেখিয়ে মামলাটি চাঁদপুর মডেল থানায় দায়ের করেছেন।
আমি তদন্ত করে বাদী ও বিবাদী পক্ষের লোকজনদের সাথে কথা বলে সাক্ষী নিয়েছি। সবাই বলেছেন ঘটনাটি ঘটেছে মতলব উত্তর থানার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নে।
এই ঘটনায় আসামিদের গ্রেফতারের জন্য চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।