কথিত প্রেমিকের বিরুদ্ধে এক কিশোরীকে কৌশলে চাঁদপুরের লঞ্চের কেবিনে তুলে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করেছে।

বেড়াতে নেওয়ার কথা বলে লঞ্চের কেবিনে কিশোরীকে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগে কথিত প্রেমিক সালাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করেছে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। সালাউদ্দিনকে ২২ জানুয়ারি বুধবার দুপুরে আদালতে পাঠায় পুলিশ।

এর আগে গত মঙ্গলবার রাতে ভুক্তভোগী ওই কিশোরী বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করলে ওই দিন রাতেই পুলিশ সালাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে। সালাউদ্দিন চাঁদপুর পৌর এলাকার উত্তর জিটি রোডের সিদ্দিক আলীর ছেলে।

পুলিশ ও ভুক্তভোগী কিশোরী জানায়, ফতুল্লার এনায়েতনগর এলাকার একটি হোসিয়ারিতে কাজ করত ওই কিশোরী। সেখানেই সালাউদ্দিনের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এরপর তিন বছর ধরে তাঁদের প্রেম চলে। এর মধ্যে সালাউদ্দিনের সঙ্গে বিয়ের কথাও হয়। গত ১১ জানুয়ারি সকালে ফতুল্লার পঞ্চবটি বাসস্ট্যান্ডে তাকে তাঁর প্রেমিক আসতে বলেন।

এরপর সেখান থেকে কৌশলে তাকে ঢাকার সদরঘাট এলাকায় নিয়ে একটি লঞ্চে উঠতে বলেন। কিশোরী লঞ্চে উঠতে গড়িমসি করলে সালাউদ্দিন আশ্বাস দেন গ্রামের বাড়িতে নিয়ে তাঁকে বিয়ে করবেন।

এরপর চাঁদপুরগামী একটি লঞ্চের কেবিনে নিয়ে তাঁকে ধর্ষণ করেন সালাউদ্দিন। পরবর্তী সময়ে চাঁদপুর থেকে ফিরে আসার পথেও সালাউদ্দিন তাকে ফের যৌন নির্যাতন করেন।