আজ  শনিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২০

চাঁদপুর বিষ্ণুপুর ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে জেলেদের চাল কম দেওয়ার অভিযোগ

 

চাঁদপুর সদর উপজেলার ১ নং বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে জেলেদের চাল ৮ থেকে ১০ কেজি কম দিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান শামিম খান বাকি চাল আত্মসাৎ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
সরকারি নিয়ম নীতি উপেক্ষা করে জেলেদের ২০ কেজি চাল দেওয়ার কথা থাকলেও তা না দিয়ে ৮/১০ কেজি চাল দিয়ে জেলেদের বঞ্চিত করছে বলে অভিযোগ করেন শতাধিক জেলে পরিবার।
শনিবার দুপুরে বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে গিয়ে দেখা যায় শত শত জেলে লাইনে দাঁড়িয়ে চাল নেওয়ার জন্য অপেক্ষা করেন।
এ সময় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শামীম খান ও ইউপি সচিব আনোয়ার গাজি এবং ট্যাগ অফিসার ইউনিয়ন পরিষদে উপস্থিত না থেকে গ্রাম্য পুলিশরা চেয়ারম্যানের নির্দেশে জেলেদের চাল দিতে দেখা যায়।
গ্রাম্য পুলিশরা জানান,চেয়ারম্যানের নির্দেশে জেলেদের ২০ কেজি চাল না দিয়ে ১০ কেজি করে চাল দেওয়া হচ্ছে।
চেয়ারম্যান সাহেব দুপুরে ইউনিয়ন পরিষদে না এসে বাসায় অবস্থান করছেন। দুপুরে খাওয়া দাওয়ার শেষ করে তিনি ইউনিয়ন পরিষদে আসেন।
বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে জেলেদের চাল কম দেওয়ায় তারা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ করেন।
এ সময় জেলেরা জানান, প্রতিবছর জাটকা মৌসুমে ইউপি চেয়ারম্যান শামিম খান জেলেদের চাল কম দিয়ে আসছে। তেমনি এ বছর মা ইলিশ রক্ষায় অভিযান চলাকালীন সময় সরকারি নিয়ম নীতি উপেক্ষা করে ২০ কেজি চাল না দিয়ে তিনি ৮ থেকে ১০ কেজি চাল দিচ্ছে। এর আগের বছর তিনি জাটকার ২ কিস্তি চাল না দিয়ে সেই চাল বিক্রি করে আত্মসাৎ করে। তিনি চাল দেওয়ার সময় কৌশলে ইউনিয়ন পরিষদে না এসে তার লোকজন দিয়ে জেলেদের চাল কম দিচ্ছে। চাল দেওয়ার সময় ট্যাগ অফিসার ও ইউপি সচিব মোস্তফা গাজীর অনুপস্থিতিতে চেয়ারম্যান বহিরাগত লোকজন দিয়ে জেলেদের জাল দিচ্ছে। চাল কম দেওয়ায় প্রতিবাদ করলে চেয়ারম্যানের লোকজন জেলেদের ওপর হুমকি-ধমকি ও হামলা চালায়।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত চেয়ারম্যান শামিম খানকে ইউনিয়ন পরিষদে না তাঁর মুঠোফোনে ফোন করলে সংযোগ বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।