আজ  বুধবার, ১৮ এপ্রিল, ২০১৮

জাতীয় পার্টি একটি নির্বাচন মূখী গণতান্ত্রিক দল : এমরান হোসেন মিয়া

মতলবে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম নিয়ে সংবাদ সম্মেলন
M1

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি ::
চাঁদপুরের মতলব উত্তর ও দক্ষিণ উপজেলা (চাঁদপুর-২) জাতীয় পাটির কার্যক্রম নিয়ে বৃহস্পতিবার বিকাল ৫ টায় মতলব উত্তর উপজেলা প্রেসক্লাব কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে জাপার কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এমরান হোসেন মিয়া বলেন, জাতীয় পার্টি একটি নির্বাচন মূখী গণতান্ত্রিক দল। জনগনের জন্য জাতীয় পার্টি সবসময় কাজ করে এসেছে। ভবিষ্যতে হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের নেতৃত্বে দেশ সেবায় জাতীয় পার্টি অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।

তিনি আরো বলেন, সাংগঠনিক কার্যক্রম আরো শক্তিশালী করতে হবে এবং সামনের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি নির্বাচন করবে সে লক্ষ্যে সারাদেশে প্রতিটি আসনে প্রার্থী দেওয়া হবে। চাঁদপুর-২ আসনে জাতীয় পার্টি থেকে আমি গতবার মনোনয়ন পেয়েছিলাম। এবার আমি আশাবাদী মনোনয়ন পাবো।

তিনি আরো বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে জাতীয় পার্টি অধিক ভোট পেয়ে নির্বাচিত হবে। জাতীয় পার্টির দেশে অনেক উন্নয়নের অবদান আছে। তাই জনগন জাতীয় পার্টিকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনবে। তিনি মতলবের উন্নয়ন তুলে ধরে বলেন, জাতীয় পার্টির কারনে মতলব উত্তরে বেরীবাঁধ হয়েছে। জাতীয় পার্টি প্রতিটি ইউনিয়নে স্বাস্থ্য কেন্দ্র স্থাপন করেছে। জাতীয় পার্টির উন্নয়ন কার্যক্রম ও সাংগঠনিক কার্যক্রমগুলো জাতির কাছে তুলে ধরতে তিনি সাংবাদিকদের অনুরোধ জানান।

উপজেলা জাতীয় যুবসংহতির সদস্য সচিব প্রভাষক আলমাছ মিয়ার সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর জেলা জাপার যুগ্ম-আহ্বায়ক এড. আঃ লতিফ শেখ, সাবেক সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক সফিউল আলম শাহজাহান, সাবেক প্রচার সম্পাদক স্বপন দেওয়ান, মতলব উত্তর উপজেলা জাপা নেতা মিজানুর রহমান মোল্লা, উপজেলা ছাত্রসমাজের আহ্বায়ক জহিরুল ইসলাম প্রমূখ।

আরো উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় যুবসংহতির সাবেক সদস্য জিশান আহমেদ রিপন, জেলা ছাত্রসমাজের আহ্বায়ক সোহরাব হোসেন মিয়াজী, সদস্য সচিব ওমর ফারুক অভি, উপজেলা জাপা নেতা সিদ্দিকুর রহমান মোল্লা, মাওলানা আবু মুছা, আব্দুল হক, যুবসংহতির নেতা শাহজাহান মেম্বার, আজহার মুফতী, ইব্রাহিম খলিল, আবু সুফিয়ান, টিটু বেপারী, জাপা নেতা করিম মোল্লা, মাইনুদ্দিন মাস্টার, মো. জাহাঙ্গীর আলম, আলাউদ্দিন, মোশারফ হোসেন, সার্জেন্ট মুক্তার, যুবসংহতির নেতা ফারুক মিয়া, ছাত্রসমাজ নেতা মাইনুদ্দিন, আমিনুল ইসলাম, আঃ জলিল, বাবু প্রমূখ।