আজ  মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট, ২০১৯

পদ্মা সেতুতে বসছে ৯ম স্প্যান

Porda220190321085423

নিজস্ব প্রতিবেদক: দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের স্বপ্নের পদ্মা সেতুর জাজিরা প্রান্তে ৩৪ ও ৩৫ নম্বর পিলারের ওপর বসতে যাচ্ছে আরেকটি স্প্যান। ৩৪ ও ৩৫ নম্বর পিলারের ওপর স্প্যানটি বসানো হবে। এটি হতে যাচ্ছে জাজিরা প্রান্তে সেতুর টানা অষ্টম স্প্যান। সব মিলিয়ে সেতুতে এটি হতে যাচ্ছে নবম স্প্যান।

সেতু বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বুধবার মুন্সীগঞ্জের কুমারভোগ থেকে সকাল পৌনে ৯টার দিকে রওয়ানা হয়ে শক্তিশালী ভাসমান ক্রেন তিয়ান-ই এর মাধ্যমে ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্য ও তিন হাজার ১৪০ টন ওজনের ৯ম স্প্যানটি দুপুর ১২টার দিকে জাজিরা প্রান্তে এসে পৌঁছায়। আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে স্প্যান বসানোর কাজ শুরু হবে। জাজিরার নাওডোবা প্রান্তে ৮ম স্প্যান বসানোর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হবে ১২০০ মিটার সেতু। গত বছরের মাওয়া পয়েন্টে ৪ ও ৫ নম্বর পিলারের ওপর আরেকটি স্প্যান বসানো হয়। ফলে সেতুর দুই প্রান্তে দৃশ্যমান হবে ১ হাজার ৩৫০ মিটার।

সেতু বিভাগ সূত্র জানিয়েছে, ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ৩৭ ও ৩৮ নম্বর পিলারের ওপর প্রথম স্প্যান, ২০১৮ সালের ২৮ জানুয়ারি ৩৮ ও ৩৯ নম্বর পিলারের ওপর দ্বিতীয় স্প্যান, ১১ মার্চ ৩৯ ও ৪০ নম্বর পিলারের ওপর তৃতীয় স্প্যান, ১৩ মে ৪০ ও ৪১ নম্বর পিলারের ওপর চতুর্থ স্প্যান, ২৯ জুন ৪১ ও ৪২ নম্বর পিলারের ওপর পঞ্চম স্প্যান, ২০১৯ সালের ২৩ জানুয়ারী ৩৬ ও ৩৭ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয় ৬ষ্ঠ স্প্যান এবং সর্বশেষ ২০ ফেব্রুয়ারি জাজিরার নাওডোবা প্রান্তে ৭ম স্প্যান বসানোর মধ্যদিয়ে জাজিরা প্রান্তে ১০৫০ মিটার ও মুন্সীগঞ্জ প্রান্তের ৪ ও ৫ নম্বর পিলারের ওপর বসানো ১টি স্প্যানসহ এখন দৃশ্যমান রয়েছে ১২০০ মিটার। বৃহস্পতিবার সেতুর ৯ম স্প্যান বসানো হলে দুই প্রান্তে দৃশ্যমান হবে ১ হাজার ৩৫০ মিটার।

উল্লেখ্য, ৪২টি খুঁটির ওপর এমন ৪১টি স্প্যানের সাহায্যে পদ্মার বুকে মাথা উঁচু করে দাড়াবে স্বপ্নের পদ্মা সেতু। প্রতিটি স্প্যানের দৈর্ঘ্য ১৫০ মিটার। ৪২টি পিলারের ওপর ৪১টি স্প্যান বসিয়ে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মাসেতু নির্মাণ করা হবে। এর মধ্যে ২১টি পিলার এরই মধ্যে দৃশ্যমান হয়েছে।

ইতোমধ্যে সেতুর অ্যাপ্রোচ সড়ক দিয়ে যান চলাচল শুরু হয়েছে। টোল প্লাজার নির্মাণকাজ শেষ করেছে সেতু বিভাগ।

দোতলা পদ্মা সেতুর নিচ তলায় চলবে ট্রেন। স্থাপন করা স্প্যানগুলোয় এখন রেলের স্লাব বসানোর কাজ চলছে। জাজিরা প্রান্তের স্প্যানগুলোয় ১২৮টি স্লাব বসানো হয়েছে। পুরো সেতুতে ২ হাজার ৯৫৯টি স্লাব বসানো হবে। মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে স্প্যান ও স্লাব বসানোর কাজ চলছে।