আজ  মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

ফরিদগঞ্জে কর্মসূচির কাজে মেম্বারের বিরুদ্ধে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ, কাজনা করেই টাকা উত্তোলন

চাঁদপুর ফরিদগঞ্জ উপজেলায় ৪০ দিনের কর্মসূচির কাজে ওয়ার্ড মেম্বার বিল্লাল হোসেন মিজির বিরুদ্ধে ব্যাপক দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। কাজ না করি ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বাররা সমন্বয় করে টাকা উত্তোলন করে নেওয়ায় জনমনে তীব্র ক্ষোভ দেখা দেয়।
ফরিদগঞ্জ উপজেলার ১০ নং গোবিন্দপুর ইউনিয়নের ৪০ দিনের কর্মসূচির কাজের ৬ টি কাঁচা রাস্তা পুনঃনির্মাণের জন্য টাকা বরাদ্দ আসে।
কিন্তু কর্মসূচির কাজ না করে ওয়ার্ড মেম্বার ও চেয়ারম্যান টাকা আত্মসাৎ করেছে বলে অনেকে অভিযোগ করেন।
১০নং গোবিন্দপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড ৪০ দিনের কর্মসূচির মাধ্যমে
সোনাগাজী বাড়ী হইতে হাশিম গাজীর বাড়ির প্রবেশমুখ রাস্তার পুনর্নির্মাণ কাজ করার জন্য টাকা বরাদ্দ হয়।
এই কাজে প্রতিদিন ৩০ জন শ্রমিক দিয়ে ৪০ দিন পর্যন্ত কাজ করার কথা থাকলেও ওয়ার্ড মেম্বার বিল্লাল হোসেন মিজি মাত্র ৮দিন ৬ থেকে ৭ জন শ্রমিক দিয়ে নামমাত্র কাজ করার কয়দিন পরেই কাজের বিল তুলে নেন।
এলাকার মানুষকে বঞ্চিত করে রাস্তার কাজ না করে টাকা আত্মসাৎ করায় জনমনে তীব্র ক্ষোভ দেখা দেয়।
সরজমিনে ১০ নং গোবিন্দপুর ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডে গেলে স্থানীয় এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, মেম্বার বিল্লাল হোসেন মিজি একজন বিএনপি নেতা। আওয়ামী লীগ সরকারের উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য সফল না করার জন্য ৪০ দিনের কর্মসূচির কাজ না করেই কাজের বিল উঠেয়ে সেই টাকা আত্মসাৎ করেছে।
সোনাগাজী বাড়ী হইতে হাশিম গাজীর বাড়ির প্রবেশমুখ রাস্তাটি বেহাল দশা পরিণত হয়েছে। এ রাস্তা দিয়ে কোন গাড়ি ভালোভাবে চলাচল করতে পারে না। ৪০ দিনের কর্মসূচিতে এ রাস্তা পুনর্নির্মাণ কাজে ২ লক্ষ দশ হাজার টাকা বরাদ্দ আসে।
বিএনপি নেতা মেম্বার বিল্লাল হোসেন মিজি ৪০ দিনের টাকা আত্মসাৎ করে নিজের পকেট ভারি করেছে।
এই বিষয়ে অভিযুক্ত ওয়ার্ড মেম্বার বিল্লাল হোসেনকে তার বাড়িতে গিয়ে না পেয়ে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিক পরিচয় জানার পরেই মোবাইল সংযোগ কেটে দেয় এ কারণে তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এই অভিযুক্ত মেম্বারের বিরুদ্ধে সঠিক তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জোর দাবী জানিয়েছেন সচেতন মহল।