আজ  বুধবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০১৮

মতলবে রাতের অাঁধারে জেলেদের ১০ লাখ টাকার জাল কেটে ফেলার অভিযোগ

M3
মতলব সংবাদদাতা :
চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার আমুয়াকান্দা খালে পাতানো প্রায় ১০ লাখ টাকার ঘের জাল ছিঁড়ে ও কেটে টুকরো টুকরো করে ফেলেছে দুবৃর্ত্তরা। জালে আটক থাকা সকল মাছ বেরিয়ে গেছে। এতে হতাশ হয়ে পড়েছেন ফিশারি মালিক পক্ষ ও জেলেরা। গত মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
 
জানা যায়, আমুয়াকান্দার আব্দুল্লাহ মোঃ ইছা পাটোয়ারী গত বছর চাঁদপুর জেলা প্রশাসক কর্তৃক মৎস্য বিভাগের এফসিডিআই প্রকল্পের আওতায় ৫ বছরের জন্যে আমুয়াকান্দা খাল (ফিশারি) লিজ আনেন। প্রায় ৩ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের ওই ফিশারিটি বহুদিন যাবৎ পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। খালটি লিজ এনে ইছা পাটোয়ারী প্রায় ১২ লাখ টাকা ব্যয়ে কচুরিপানা ও ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কার করে মাছ চাষ করেন। গত ১০-১২ দিন আগে ওই মাছ ধরার প্রস্তুতি নেন তিনি। এমতাবস্থায় গত ৭ মার্চ গভীর রাতে ফিশারিতে পাতানো ঘের জাল কেটে টুকরো টুকরো করে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা। কেন কী কারণে এ ঘটনা ঘটেছে তা কিছুই জানা যায় নি।
 
ফিশারির দায়িত্বে থাকা মোঃ আলাউদ্দিন জানান, আমি মঙ্গলবার রাত ১২টায় দিকে পাহারাদারদের ডিউটি চেক করতে ফিশারি পাড়ে যাই। এর প্রায় দুই ঘণ্টা পরই আমাকে ক’জন এসে বন্দী করে এবং সাথে থাকা মোবাইল ফোন ও অন্যান্য জিনিসপত্র নিয়ে যায়। আমার সাথে থাকা পাহারাদার মাজহার ও ধোনাইকেও হাত-পা বেঁধে তাদের বন্দী করে রেখে ফিশারিতে থাকা সকল জাল টেনে হিঁচড়ে উপরে উঠায় এবং কেটে টুকরো টুকরো করে ফেলে। এতে জালে বেড় দেয়া সকল মাছ বেরিয়ে গেছে। ২ জন জেলে ছিলো, তাদেরকেও জিম্মি করে তারা। রাতের অন্ধকারে তাদের চিনতে পারি নি। আমার সন্দেহ স্থানীয় এবং বহিরাগত প্রায় ১৫-২০ জন এসেছিলো।
 
আব্দুল্লাহ মোঃ ইছা পাটোয়ারী বলেন, গত বছর আমি জেলা প্রশাসক কর্তৃক ফিশারিটি লিজ এনে বহু টাকা খরচ করে মাছ চাষ উপযোগী করে মাছ চাষ করি। মাছ ধরাকালীন গত ৭ মার্চ মঙ্গলবার গভীর রাতে কে বা কারা আমার নিজের ক্রয়কৃত ও জেলেদের প্রায় ১০ লাখ টাকার ঘের জাল কেটে টুকরো টুকরো করে ফেলেছে। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।