আজ  সোমবার, ২০ মে, ২০১৯

মতলব উত্তরে মাদক ব্যবসায়ী ও ১০ মামলার আসামী জনি অস্ত্র-গুলি, ইয়াবা’সহ গ্রেপ্তার

Matlab Picture 01

মতলব (চাঁদপুর) প্রতিনিধি:
চাঁদপুরের মতলব উত্তরের তালিকাভূক্ত শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ও ইয়াবা স¤্রাট জনি (৩৭) পাইপগান, গুলি ও ইয়াবা’সহ পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছে। সে মতলব উত্তর উপজেলার বারহাতিয়া গ্রামের মৃত আফিল উদ্দিনের ছেলে। তার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা ও ডাকাতির অভিযোগে ১০টি মামলা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে বলে পুলিশ জানান।
মতলব উত্তর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মিজানুর রহমানের নির্দেশনায় পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোরশেদ আলম ভূঁইয়া, এসআই ইসমাইল হোসেন, এসআই ফিরোজ মাহমুদ, এএসআই আনিসুর রহমান, এএসআই আবুল কালাম ও ফোর্সের সমন্বয়ে গঠিত মতলব উত্তর থানা পুলিশের একটি টিম তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনাকালে ২৭ এপ্রিল রাত আনুমানিক ৮টার দিকে এসআই ফিরোজ মাহমুদের নেতৃত্বাধীন টিম ঘটনাস্থল সুজাতপুর বাজারের পশ্চিম দিকে উত্তর লুধুয়া রাস্তার মাথায় পাকা রাস্তার উপর যানবাহন চেক করা কালে মোটরসাইকেল যোগে চেক পয়েন্টে অতিক্রমকালে পুলিশ উক্ত আসামীকে থামার সিগনাল দেয়। পুলিশের উপস্থিতি বুঝতে পেরে মোটর সাইকেল ফেলে পালানোর চেস্টাকালে একটি দেশীয় তৈরী পাইপগান, ১ রাউন্ড কার্তুজ, ১টি ধারালো সুইস গিয়ার, ৬৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ঢাকা মেট্টো-ল-৩৫-৪৮৬৮ রেজিস্ট্রেশন নম্বরের মোটর সাইকেল’সহ রাত আনুমানিক সোয়া ৮টায় জনি’কে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করা হয়।
গ্রেপ্তারকালে জনি ধারালো সুইসগিয়ার হাতে পুলিশের উপর আক্রমণ করতে উদ্যত হলেও পুলিশের কৌশলের কাছে ধরা পড়তে বাধ্য হয়। উক্ত ঘটনায় এসআই ফিরোজ মাহমুদের দায়েরকৃত এজাহারের ভিত্তিতে ধৃত জনির বিরুদ্ধে ১৮৭৮ ইং সনের অস্ত্র আইনের ১৯-এ ধারায় মতলব উত্তর থানার মামলা নং-২৯, তারিখ:২৮.৪.১৯ খ্রিঃ এবং ২০১৮ ইং সনের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ৩৬(১)-১০(ক) ধারায় মামলা নং-৩০, তারিখ: ২৮.৪.১৯ খ্রিঃ রুজু করা হয়েছে।

Matlab Picture 02
পুলিশের রেকর্ডে তার বিরুদ্ধে পূর্ববর্তী আরও ৯টি বিচারাধীন মামলার তথ্য পাওয়া গেছে। তন্মধ্যে ৩টি ডাকাতির প্রস্তুতি এবং ৬টি মাদক মামলা রয়েছে। মামলা সমূহ হচ্ছে-দাউদকান্দি থানার মামলা নং-৩৪(১১)১৮, ধারা: মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১)-৯(ক)/২৫; মতলব উত্তর থানার মামলা নং-৩(১১)১৮, ধারা: ৩৯৯/৪০২ পিসি; মতলব উত্তর থানার মামলা নং-৭(১০)১৮, ধারা:৩৯৯/৪০২ পিসি; মতলব উত্তর থানার মামলা নং-২০(৭)১৮, ধারা:মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১)-৯(খ)/২৫; মতলব উত্তর থানার মামলা নং-২৩(৬)১৮, ধারা:মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১)-৯(খ)/২৫; মতলব উত্তর থানার মামলা নং-১৩(৫)১৮,মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১)-৯(খ)/২৫; মতলব উত্তর থানার মামলা নং-৭(১১)১৭,মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১)-৯(খ)/২৫; মতলব উত্তর থানার মামলা নং-৫(৮)১৭,মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯(১)-৯(খ)/২৫ ও মতলব উত্তর থানার মামলা নং-১(১)১৮,ধারা: ৩৯৯/৪০২ পিসি।
আটককৃৃত জনি মতলব উত্তর থানা পুলিশের তালিকাভূক্ত শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। এছাড়া নিজের একটি সংঘবদ্ধ গ্রুপ নিয়ে বিভিন্ন স্থানে ডাকাতি সংঘটনেরও অভিযোগ রয়েছে। তার বিরুদ্ধে কেউ প্রকাশ্যে মুখ খুলতে সাহস পেতনা। জনি গ্রেপ্তার হওয়ায় এলাকার মানুষের মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে।