আজ  সোমবার, ২৩ এপ্রিল, ২০১৮

মতলব উত্তরে লাশ গুমের ঘটনায় মামলা : ৪ জনকে আদালতে প্রেরণ

প্রাইভেটকারে করে লাশ ফেলে দেওয়া হয়

Matlab news pic 1_1

আরাফাত আল-আমিন ◊
চাঁদপুরের মতলব উত্তরে মারিয়া জেনারেল হাসপাতাল ও ডায়াগণষ্টিক সেন্টারে অবৈধভাবে গর্ভপাতের সময় মৃত গৃহবধু টগি রানী সরকারের মৃত্যু ও লাশ গুমের ঘটনায় নিহতের স্বামী ক্ষিতিশ চন্দ্র সরকার বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং ১১, তারিখ: ২২/০১/১৮ইং। মামলার আসামীরা হলো- বালুচর গ্রামের মৃত আজিজ আহমেদের মেয়ে আফরোজা মাসুদ ঝুনু (৩৮), ছেলে শিপন (৩৫), ইবনাল মঈন আহমেদ রিপন (৪৫), উত্তর শিকিরচরের মৃত রহিম বক্সের ছেলে জামাল হোসেন (৪২), ঘনিয়াড়পারের মৃত ডা. জসিম উদ্দিনের ছেলে সোহাগ মোল্লা (২৫)।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, প্রধান আসামী সরকারি চাকুরীজীবি হয়েও দীর্ঘদিন ধরে প্রাইভেট হাসপাতাল পরিচালনা করে আসছে। ঝুনু নিজেকে বিশেষজ্ঞ গাইনী ডাক্তার পরিচয় দিয়ে রোগী দেখতেন। শুধু তাই নয়, তিনি রোগীদের অবৈধ গর্ভপাত, ডিএনসিসহ বিভিন্ন অবৈধ চিকিৎসা দিয়ে আসছিলেন। অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়, মৃত্যুর পর মামলার ৫নং আসামী সোহাগ মোল্লার ভাড়ায় চালিত প্রাইভেটকারে করে লাশ গুম করার লক্ষ্যে রাতের আঁধারে উপজেলার ষাটনল এলাকায় সেচ ক্যানেলে ফেলে দেয়।
থানা সূত্র জানায়, আটককৃত ক্লিনিকের পরিচালক ও প্রধান আসামী পরিবার পরিকল্পনা সহকারি (এফডব্লিউএ) আফরোজা মাসুদ ঝুনু (৩৮), নৈশ্য প্রহরী জামাল হোসেন (৪২) কে মঙ্গলবার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। সেই সাথে ১৬৪ ধারায় জবানবন্ধির জন্য ক্লিনিকের দুই কর্মচারীকেও আদালতে পাঠানো হয়।

Matlab news pic 1_2
এদিকে নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসী মঙ্গলবার দুপুরে মতলব উত্তর থানার সামনের সড়ক ও ছেঙ্গারচর বাজারের প্রধান প্রধান সড়কে এবং মারিয়া হাসপাতালের সামনে আসামীদের ফাঁসির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করে। বিক্ষোভকারীরা বলেন, অবৈধভাবে গর্ভপাতের ঘটনায় নিহত টগি হত্যার চাই। এবং প্রধান আসামী ঝুনু সহ আসামীদের ফাঁসি চাই।
মতলব উত্তর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আনোয়ারুল হক ও ওসি (তদন্ত) মো. আলমগীর হোসেন জানান, পেনাল কোড আইন এর ৪১৯/৩১৪/৩০৪(ক) ও ২০১ ধারায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। পরিচালক আফরোজা মাসুদ ঝুনু ও নৈশ্য প্রহরী জামাল হোসেনকে কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে। এবং ১৬৪ ধারায় জবানবন্ধির জন্য দুই জনকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।
মঙ্গলবার সকালে মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শংকর কুমার সাহার নেতৃত্বে মেডিকেল অফিসার ডা. জয়নাল আবেদীন, ডা. তানজিলা আক্তার মারিয়া জেনারেল হাসপাতাল ও ডায়াগণষ্টিক সেন্টার পরিদর্শন করেন। এসময় ডা. শংকর কুমার সাহা বলেন, সিভিল সার্জনের নির্দেশক্রমে পরিদর্শনে এসেছি। সকল তথ্য দেওয়ার পর সিভিল সার্জন পরবর্তী ব্যবস্থা নিবেন।