আজ  বৃহঃবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৯

মতলব উত্তরে শরীফ উল্লাহ হাইস্কুল এন্ড কলেজের কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা

Matlab uttar pic 2_1

আরাফাত আল-আমিন ◊
চাঁদপুরের মতলব উত্তরে শরীফ উল্লাহ হাইস্কুল এন্ড কলেজে শিক্ষার মান উন্নয়ন, সম্পত্তি সংরক্ষণ ও ব্যবস্থাপনা, বেহাত সম্পত্তি পুনরুদ্ধার, ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা এবং এ প্লাস প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সম্মাননা প্রদান উপলক্ষ্যে মতবিনিময় সভা ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠান হয়েছে। শনিবার (৮ জুন) সকালে স্কুল প্রাঙ্গণে আয়োজিত এই বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অত্র প্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডির সভাপতি আনিসুল হক।

সহকারী শি¶ক সাদেক মিয়া ও আশাদ উল্লার যৌথ সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন গভর্ণিং বডির সভাপতি আনিছুল হক। আরো বক্তব্য রাখেন, প্রধান শিক্ষক মোঃ শরীফ উল্লাহ, প্রাক্তন ছাত্র আলী আরশাদ, মিজানুর রহমান মোল্লা, আওয়ামী লীগ নেতা হানিফ মিয়া, হামিদুর রহমান, উপজেলা যুবসংহতির সভাপতি অ্যাড. শামীমুল ইসলাম, প্রাক্তন শিক্ষক আশাদ উল্লাহ হুমায়ুন, প্রাক্তন ছাত্র আবুল কালাম আজম, হুমায়ুন কবির, ষ্টুডেন্ট কেবিনেটের সভাপতি সোহেল রানা, শিক্ষার্থী ওছমান গনি প্রমুখ। অনুষ্ঠান শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত করেন মাও. ইসহাক মিয়া।

সভাপতির সভাপতির বক্তব্যে আনিসুল হক বলেন, আমার বাবা একজন মন্ত্রী ছিলেন। আমি সবসময়ই নিজের আত্মসম্মান বোধ বজায় রেখে চলার চেষ্টা করি। এলাকাবাসী আমাকে ভালবেসে এই প্রতিষ্ঠানের সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত করেছেন। আমি যতদিন আছি এই প্রতিষ্ঠানে কোন দূর্নীতি তো দূরে থাক কোন দূর্নীতির কোন আঁচরও লাগতে দেবো না। যদি আপনাদের এলাকাবাসীর সহযোগীতা থাকে।

তিনি আরও বলেন, আমি সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে অত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনেক পরিবর্তন এনেছি। শিক্ষার মানও ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। গত ৩০ বছর আগে এই প্রতিষ্ঠানের যে ঐতিহ্য ছিল তা ফিরিয়ে আনবোই। আনিসুল হক বলেন, এই প্রতিষ্ঠানের ৮.৫৩ একর সম্পত্তি আছে। এরমধ্যে ১.৩০ একর বেদখল হয়ে আছে। এলাকাবাসীর সহযোগীতায় ওই সম্পত্তিও পুণরুদ্ধার করা হবে। এছাড়াও ১৬০ টি দোকান ঘরের ভাড়া উঠে না নিয়মিত। এগুলোও নিয়ন্ত্রণে আনা হবে খুব দ্রুত। সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা শুনে উপস্থিত অভিভাবক, এলাকাবাসী করতালির মাধ্যমে অভিনন্দন জানান।

আলোচনা সভা শেষে বিগত ১০ বছরে এসএসসি পরীক্ষায় এ প্লাস প্রাপ্ত ৯ জন কৃতি শিক্ষার্থীদের ক্রেস্ট দিয়ে সংবর্ধনা জানানো হয়। এছাড়াও ২০১৯ শিক্ষাবর্ষে গোল্ডেন এ প্লাস প্রাপ্ত ১ জন শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা প্রদান করা ও ৩ এ গ্রেট প্রাপ্তকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়েছে।

সভায় ১৬০ টি দোকান ঘর ও ৮.৫৩ একর সম্পত্তি শরীফ উল্লাহ হাইস্কুল এন্ড কলেজের নামে আছে বলে জানানো হয়। এরমধ্য দোকানের ভাড়া নিয়মিত উঠে না। ১৩০ শতাংশ জমি বেদখল হয়ে আছে। এ সম্পত্তি উদ্ধারের লক্ষ্যে উন্মুক্ত আলোচনা ও পর্যালোনা করেন বক্তারা।