আজ  বৃহঃবার, ২২ অক্টোবর, ২০২০

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ দপ্তরের সফলতা, ২ মাসে ব্যাপক মাদক উদ্ধার

চাঁদপুর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক একেএম দিদারুল আলম যোগদানের পর থেকে দুই মাসে ১০ হাজার ১৬৯ পিস ইয়াবা,চার কেজি গাঁজা ও মাদক বিক্রির কাজে ব্যবহৃত একটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।
গত দুই মাসে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ১১৫ টি অভিযান পরিচালনা করেন এর মধ্যে ১৮ টি মাদক মামলা দায়ের ও ১৬ জন আসামি গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

সর্বশেষ চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলার ১২ নং আশরাফপুর ইউনিয়নের শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী মানিকের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ২০০ পিস ইয়াবা জব্দ করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর।
এসময় মাদক ব্যবসায়ী মানিক মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।
এ ঘটনায় বুধবার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ইন্সপেক্টর মজিবুর রহমান বাদী হয়ে মালিককে প্রধান আসামী করে কচুয়া থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করা হয়।
মাদক ব্যবসায়ী মানিক ভূঁইয়া ১২ নং আশরাফুল ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের খলিল ভূঁইয়ার ছেলে।
বর্তমানে তার বিরুদ্ধে চাঁদপুর জেলায় ছিনতাই ও মাদকের নয়টি মামলা রয়েছে।
মাদকের ডিলার ও সিএনজি ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য মানিক কুমিল্লা জেলায় ঘা ডাকা দিয়ে আছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
চাঁদপুর ও লক্ষ্মীপুরে দায়িত্বে থাকা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক একেএম দিদারুল আলম যোগদানের পর থেকে মাদক নির্মূল করার ক্ষেত্রে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছেন।
সর্বশেষ পাঁচ হাজার পিস ইয়াবা কচুয়া মাদক সম্রাজ্ঞী উম্মে হাবিবাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছেন। এটাই ছিল চাঁদপুর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সবচেয়ে বড় সফলতা।
এ বিষয়ে একেএম দিদারুল আলম জানায়, আমি ২০২০ সালের এপ্রিলের ৬ তারিখে চাঁদপুর জেলায় যোগদান করেছি। যোগদানের পর থেকে মাদকের বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষণা করেছি।
বর্তমানে মহামারী সময়ে মাদকের অভিযান পরিচালনা করে যাচ্ছি। সর্বশেষ পাঁচ হাজার পিস ইয়াবাসহ এক মাদক সম্রাজ্ঞীকে আটক করতে সক্ষম হয়েছি।
দুই মাসে ১০ হাজার ১৬৯ পিস ইয়াবা,চার কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়েছে।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছে তার ধারাবাহিকতায় চাঁদপুরে মাদকের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।
আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে সকলের সহযোগিতা থাকলে এই জেলা থেকে মাদক মুক্ত করা সম্ভব হবে।

শাহরিয়ার খান কৌশিক, মো,০১৭১৩৬৮৮৯২০