আজ  শনিবার, ২১ এপ্রিল, ২০১৮

১৫ আগস্টের আগেও হামলা হয়েছিল মুজিব পরিবারে

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সপরিবারে খুন হওয়ার কয়েক মাস আগে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানের ওপর গ্রেনেড হামলা করা হয়েছিল। ওই বছর ২১ মে সন্ধ্যায় সেই হামলা থেকে সুস্থ অবস্থায় বেঁচে গিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। উইকিলিকস থেকে ফাঁস হওয়া কিছু মার্কিন তারবার্তা থেকে জানা যায় এসব তথ্য। ভারতের অন্যতম প্রভাবশালী গণমাধ্যম দ্য হিন্দু এ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে ২০১৩ সালে।আরকে রাধাকৃষ্ণর লেখা ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, ঢাকায় নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস থেকে ওয়াশিংটনে পাঠানো বেশকিছু তারবার্তা ফাঁস করে উইকিলিকস। সেসব গুচ্ছ তারবার্তা থেকে জানা যায়, শেখ মুজিবের ওপর মে মাসের ওই হামলার খবর তখন প্রকাশ না করতে বাংলাদেশি গণমাধ্যমগুলোকে সরকারের তরফ থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

ঢাকায় মার্কিন দূতাবাস থেকে ওয়াশিংটনে পাঠানো একটি তারবার্তা ছিল এমনÑ ‘প্রেসিডেন্ট মুজিবুর রহমানকে গুপ্তহত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছিল। ২১ মে সন্ধ্যায়। আমরা এ বিষয়ে দুটি সূত্র থেকে খবর পেয়েছি।’ উইকিলিকসের সাইট অনুযায়ী, ওই তারবার্তাটি পাঠানো হয় মুজিবকে হত্যাচেষ্টার ওই ঘটনার দুই দিন বাদে, ১৯৭৫ সালের ২৩ মে।তারবার্তায় বলা হয়, ‘মুজিব তখন ঢাকার বাইরে একটি টিভি স্টেশন সফর শেষে বাসায় ফিরছিলেন। এমন সময় হত্যাচেষ্টা করা হয়।’ ঠিক কোথায় হামলাটি হয়, এ বিষয়ে অবশ্য স্পষ্ট করে কিছুই উল্লেখ ছিল না ওই তারবার্তায়। কারা এ ধরনের হামলা চালিয়ে থাকতে পারে, সে নিয়েও কিছু বলা ছিল না।মার্কিন দূতাবাস ওয়াশিংটনকে এ বিষয়ে দুটি সূত্রের কথা উল্লেখ করে। তারবার্তায় বলা হয়, ‘প্রাথমিক সূত্র হলো দূতাবাসের বাঙালি রাজনৈতিক সহযোগী। তিনি বলেছেন, প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তা ইউনিটে নিযুক্ত পুলিশের ডেপুটি সুপারিনটেন্ডেন্ট তাকে এ খবর দিয়েছেন। আরেকটি সূত্র হলো একজন সাংবাদিক। তিনি তথ্য অফিসার আলপার্নকে খবরটি দিয়েছেন।’তারবার্তায় উল্লেখ করা হয়, ‘দুটি সূত্রই বলেছে, [হত্যাচেষ্টায়] গ্রেনেড ব্যবহার করা হয়েছিল। সংবাদকর্মীর দেওয়া খবর অনুযায়ী, মুজিব সুস্থ অবস্থায় বেঁচে গিয়েছেন। কিন্তু অজ্ঞাত দুই ব্যক্তি আহত হন। তিনি আরও জানিয়েছেন, প্রেস ইনফরমেশন ডিপার্টমেন্ট (পিআইডি) থেকে কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যেন এই খবরটা চেপে যাওয়া হয়।’ তারবার্তায় অবশ্য দুটি সূত্রের কোনোটিরই নাম উল্লেখ করা হয়নি।দ্য হিন্দুর প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৫ আগস্ট সপরিবারে শেখ মুজিবুর রহমান হত্যার শিকার হওয়ার পরও ঢাকা থেকে ওয়াশিংটনে কয়েকটি তারবার্তা পাঠিয়েছিল মার্কিন দূতাবাস।

একটি তারবার্তায় বলা হয়, ‘অভ্যুত্থানের ষড়যন্ত্রকারীরা সিদ্ধান্ত নেয়, কাজটা সারতে আর কোনোরকম দেরি করা যাবে না। ভারতের স্বাধীনতা দিবসকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বেছে নেওয়া হয়েছে এটা হতেও পারে। তবে আমরা মনে করি, এটা কাকতালীয়।’ (সূত্র: আ.স.)