আজ  শনিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২০

করোনায় ভাইরাসে মোট ৭ বাংলাদেশির মৃত্যু

 

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯ এ সংক্রমিত হয়ে বিশ্বে এ পর্যন্ত মারা গেছে ১০ হাজারের বেশি মানুষ। ভাইরাসটি আবির্ভাবের মাত্র ৩ মাসের মাথায় মৃতের সংখ্যা এটি। এর মধ্যে ৪ দেশে মারা গেছেন ৭ বাংলাদেশি।

করোনায় মৃত ৭ বাংলাদেশির মধ্যে ঢাকায় মারা গেছেন দুই জন। গত ১৮ মার্চ (বুধবার) প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় এক বৃদ্ধের মৃত্যুর খবর দেয় জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা বিভাগ (আইইডিসিআর)। দেশের মাটিতে এটিই করোনায় প্রথম মৃত্যু।

আর শনিবার (২১ মার্চ) স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে করোনায় আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশে আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে নিউইয়র্কে দুই বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। তাঁরা দুজনই কুইন্সের বাসিন্দা ছিলেন। এস্টোরিয়া এলাকার বাসিন্দা ষাটোর্ধ্ব একজন গত বৃহস্পতিবার রাতে মারা যান। হার্টের সমস্যাসহ নানা রোগে ভুগছিলেন তিনি। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর কুইন্সের একটি হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা চলছিল।

অন্যজন কুইন্সের উডসাইডের বাসিন্দা ছিলেন। পেশায় গ্রিন ক্যাবের চালক ছিলেন। তাঁর বয়স ৫০ বছর। এনওয়াইপিডি কর্মকর্তা খান শওকত তাঁর মৃত্যুর তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

অন্যদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাজ্যে মারা গেছে দুইজন। গত ৮ মার্চ যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এক বৃদ্ধ বাংলাদেশি মৃত্যুবরণ করেন।

তারা ছেলে বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারের জানান, তার বাবা ইতালি থেকে লন্ডনে ফিরে এসেই অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

যুক্তরাজ্যে অপর বাংলাদেশি মারা যান গত ১৩ মার্চ। স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৬টার দিকে রয়েল লন্ডন হাসপাতালে ৬৬ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি মারা যান।

এছাড়া ইতালির মিলানে গতকাল শুক্রবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন এক বাংলাদেশি। পাসপোর্টের তথ্য অনুযায়ী, তাঁর বয়স ৫০ হলেও ঘনিষ্ঠজনেরা জানান, প্রায় ৬০ বছর বয়সী ছিলেন ওই ব্যক্তি।