আজ  বৃহঃবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০২০

চাঁদপুরে ট্রাক-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষ নিহত ১, আহত ৩

 

।। চাঁদপুর ফরিদগঞ্জ উপজেলার ধানুয়া নামক এলাকায় ট্রাক সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় আমজাদ (৪৭) নামে একজনের করুন মৃত্যু হয়েছে।
শুক্রবার সন্ধ্যায় ধানুয়া বাজার এলাকায় এ দূর্ঘটনার ঘটনাটি ঘটে।
এই ঘটনায় রহমত আলী (৪০) ফরিদ (৩০) ও সিএনজি চালক রাসেল কবিরাজসহ ৩ আহত যাত্রীকে স্থানীয়রা উদ্বার করে চাঁদপুর সরকারী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে ভর্তি করায়।
নিহত আমজাদ ফরিদগঞ্জ উপজেলার ৬ নং পশ্চিম গুপ্টি ইউনিয়নের খাজুর গ্রামের আব্দুল হকের ছেলে।
ফরিদগঞ্জ থেকে ঢাকায় চিকিৎসা জন্য যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হলে সড়ক দুর্ঘটনায় তার করুণ মৃত্যু হয়।
সঠিক মত রোগীকে চিকিৎসা না দিয়ে ও গুরুতর আহতকে ঢাকায় রেফার না করায় হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার সৈয়দ আহমেদ কাজলের অবহেলার কারণে আমজাদ হোসেনের করুণ মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করেন নিহতের পরিবার।
স্থানীয়রা জানায়, ফরিদগঞ্জ থেকে চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে আসা সিএনজি (চাঁদপুর থ ১১-১৭৫৯) বিপরীত দিক থেকে আসা ট্রাক (চট্ট মেট্টো ট-১১-৫৯৪০) সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। সাথে সাথে সিএনজিটি ধুমরেমুচড়ে যায় এবং ট্রাক চালক গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়। এতে সিএনজি চালক ও ৩ যাত্রী গুরত্বর আহত হয়।
‌আহতদের চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসার পর কর্তব্যরত ডাক্তার কাজল তাকে দেখে ভর্তি দেয়।
কিন্তু রোগীর পরিবারের লোকজন তাকে হাসপাতালের বাইরে ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে এক্স এ করিয়ে দেখেন তার শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ভাঙ্গা ও বুকে রক্ত জমাট হয়ে আছে।
এসময় কর্তব্যরত ডাক্তার কাজলকে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি রোগীর কাছে না গিয়ে ঢাকায় রেফার করার জন্য বললে নিহতের পরিবারের সাথে বাকবিতন্ডা করে। অবশেষে রাত ১০টায় তাকে ডাকা রেফার করেন। কিন্তু এর কিছুক্ষণ পরেই আমজাদ হোসেনের করুণ মৃত্যু হয়।
এদিকে ঘাতক ট্রাকটি ছাড়িয়ে নেওয়ার জন্য টাকার মালিক ফরিদগঞ্জ থানায় গিয়ে দালালদের নিয়ে চেষ্টা চালায় সে বলে জানা যায়।
খবর পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ হাসপাতালে এসে লাশের সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য থানায় নিয়ে যায়।
এই ঘটনায় ঘাতক ট্রাকের চালকের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা যায়।