আজ  বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০

চাঁদপুরে পাওনাদারের বিরুদ্ধে প্রতারণার মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির, প্রতারকের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ

 

চাঁদপুর সদর উপজেলার ১২ নং চান্দ্রা ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ড দক্ষিণ বাখরপুর গ্রামের প্রতারক ইব্রাহিম গাজীর প্রতারণার ফাঁদে পড়ে এলাকার অনেক মানুষ প্রতারিত হয়েছে।
পাওনা টাকা চাওয়ায় পাওনাদারের বিরুদ্ধে ভুয়া ভিসার কাগজ দেখিয়ে প্রতারণার মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার অভিযোগ উঠেছে।
এই ঘটনায় প্রতারক ইব্রাহিম গাজীর বিরুদ্ধে এলাকার ভুক্তভোগীরা বিক্ষোভ মিছিল করে তার বিচার দাবি করেন।

প্রতারক ইব্রাহিম গাজী তার চাচাতো ভাই প্রবাসী মান্নান গাজীর কাছ থেকে বিভিন্ন সময় কয়েক লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় পুলিশ সুপারের বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করা হয।
অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের ওসি ক্রাইম নাজমুল ইব্রাহিম গাজী ও পাওনাদার মান্নান গাজী সহ বেশ কয়েকজনের উপস্থিতি সালিশি বৈঠক করেন।
সে সময় চার লক্ষ ৮৫ হাজার পাওনা টাকা সাব্যস্ত হলে তিন দিনের মধ্যে টাকা দেওয়ার কথা বলে প্রতারক ইব্রাহিম কাজী সেখান থেকে চলে আসেন।
পাওনাদারের টাকা না দিয়ে সেই টাকা আত্মসাৎ করতে বিভিন্নভাবে ফন্দি পাকায়।
পরে ২০১৮ সালে ইব্রাহিম গাজীর ছেলে আকবর হোসেনকে বিদেশে পাঠানোর নামে একটি ভুয়া ভিসার কাগজ দেখিয়ে আদালতে পাওনাদার মান্নান গাজীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।
প্রবাসী মান্নান গাজীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করায় ক্ষিপ্ত হয়ে এলাকার সাধারণ মানুষ প্রতারক ইব্রাহিম গাজীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল করেন এর তীব্র প্রতিবাদ জানান।
ভুক্তভোগীর শিকার ইসমাইল ডালী ও ওবায়দুল্লাহ গাজী সহ বেশ কয়েকজন জানান, দক্ষিণ বাখরপুর গ্রামের মৃত ইসহাক গাজীর ছেলে প্রতারক ইব্রাহিম গাজী তার মেয়ের জামাই গুলিশা গ্রামের সৌদি প্রবাসী শফিক পাটোয়ারী এলাকার মানুষদের বিদেশ যাওয়ার কথা বলে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।
মেয়ে জামাই এর মাধ্যমে বিদেশ লোক পাঠানোর নামে একজনের কাছ থেকে ৬ লক্ষ ও অপর জনের কাছ থেকে সাত লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়।
তারা শ্বশুর জামাই মিলে এলাকার অনেক মানুষের কাছ থেকে বিদেশে নেওয়ার কথা বলে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেছে।
তাদের সমস্যা সমাধানের জন্য প্রবাসী মান্নান গাজীর কাছ থেকে টাকা হাওলাত নিয়ে দেনায়ারের টাকা দেয়।
কিন্তু ইব্রাহিম গাজী তার চাচাতো ভাই প্রবাসী মান্নান গাজী টাকা না দিয়ে উল্টো তার নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে।
আমরা এই প্রতারক ইব্রাহিম গাজীর বিচার দাবি করছি।
এ বিষয়ে প্রতারণার শিকার প্রবাসী মান্নান গাজী জানান, কুয়েত থাকা অবস্থায় জ্যাঠাতো ভাই ইব্রাহিম গাজী ট্রাক্টর কিনার নামে ৭ লক্ষ টাকা নিয়েছে।
গাড়ির হিসাব হিসাব না দিয়ে গরমিল করায় সেই ট্রাক সাড়ে পাঁচ লক্ষ টাকা বিক্রি করে সাড়ে চার লাখ টাকা দেয়।
তার মেয়ের জামাই মাধ্যমে ইব্রাহিম গাজী মানুষের বিদেশ নেওয়ার নামে টাকা আত্মসাৎ করে।
পাওনা টাকার জন্য এলাকার মানুষ তাকে চাপ প্রয়োগ করলে সমস্যা সমাধানের নামে ইব্রাহিম গাজী টাকা হাওলাত নেয়।
তার সাথে বেশ কয়েকবার সালিশী বৈঠক হওয়ার পরেও পাওনা টাকা না দেওয়ায় তাঁর বিরুদ্ধে পুলিশ সুপার কার্যালয় ও মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়।
কিন্তু টাকা আত্মসাৎ করার লক্ষ্যে সে উল্টো ভুয়া ভিসার কাগজ দেখিয়ে টাকা পাবে বলে আদালতে মামলা দায়ের করেন।
এই ঘটনাটি তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী জানাই।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান খানজাহান আলী কালু পাটোয়ারী জানান, বাখরপুর গ্রামে ইব্রাহিম গাজীর কাছ থেকে প্রবাসী মান্নান গাজী টাকা পাবে যা এলাকার ওয়ার্ড মেম্বার ও স্থানীয়রা অবগত করেছেন। কিন্তু পাওনা টাকা চাওয়ায় ইব্রাহিম গাজী স্থানীয় দালাল ধোকাবাজের মাধ্যমে আদালতে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন যা তদন্তে প্রমাণিত হবে। মিথ্যা মামলার জন্য আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই । দেশের প্রচলিত আইনে মাধ্যমে পাওনাদার মান্নান গাজী টাকা যেভাবে পেতে পারে আমরা সেই ব্যবস্থা করব।

এদিকে অভিযুক্ত ইব্রাহিম গাজীকে না পাওয়ায় তার সহধর্মিনী জানান, মান্নান গাজী আমার ছেলেকে বিদেশে নেওয়ার নামে ভিসা দিয়ে টাকা নিয়েছে। আমাদের কাছে কোন টাকা পাবে না। আমাদের বিরুদ্ধে সুপারের কার্যালয়ে অভিযোগ করেছে তা এখনো সমাধান হয়নি।

শাহরিয়ার খান কৌশিক, মো,০১৭১৩৬৮৮৯২০