আজ  মঙ্গলবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২০

চাঁদপুরে মাছ পাচারকালে ড্রাম বোঝাই জাটকা জব্দ, জাটকা রুবেল পলাতক

  চাঁদপুরে প্রতিদিন দিনে-রাতে ট্রাক ও পিকআপ বোঝাই করে জাটকা ইলিশ ঢাকায় পাচার হচ্ছে বেশ কয়েকটি চক্র।
শনিবার গভীর রাতে চাঁদপুর সদর উপজেলা ১২ নং চান্দ্রা ইউনিয়নের আখন রাট এলাকায় মডেল থানা পুলিশ অভিযান চালায়। এসময় হানার চর ইউনিয়নের জাতকা রুবেল নামে খ্যাত চোরাকারবারি জাটকা মাছ গ্রামে বোঝাই করে পিকআপে উঠানোর প্রস্তুতি নেওয়ার খবর পায় পুলিশ।
মডেল থানার এসআই পলাশ বড়ুয়ার নেতৃত্বে এ এস আই  সেলিম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে এখন ঘাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় জাম বোঝাই জাটকা মাছ জব্দ করে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে রুবেল ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।
পরে পুলিশ অন্য একটি পিকআপ ভ্যান এনে সেই প্রায় ৬০০ কেজি জাটকা মাছগুলো উঠিয়ে মডেল থানায় নিয়ে আসে।
জাটকাগুলো আদালতের নির্দেশে থানা প্রাঙ্গণ হতেই আজ দুপুরে কয়েকশো দুস্থ মহিলাদের মধ্যে তৎক্ষণাৎ বিতরণ করা হয়।
এ সময় থানায় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চাঁদপুর সদর সার্কেল জাহিদ পারভেজ চৌধুরী ও সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মিজানুর রহমান।

পুলিশ জানায়, গভীর রাতে জাটকা মাছ হানারচর ইউনিয়নের রুবেল মাছগুলো আখন ঘাট এলাকায় খালের পাড়ে লোড করছিল। এই খবর শুনে ঘটনাস্থলে অভিযান চালালে জাটকা রুবেল সহয়তা সহযোগিতা পালিয়ে যায়।
এসময় পরিত্যক্ত অবস্থায় জাটকা মাছগুলো জব্দ করে থানায় নিয়ে আসা হয়।
এই  রুবেল প্রতিদিন রাতে প্রায় এক থেকে দেড় হাজার কেজি জাটকা মাছ চাঁদপুর থেকে পিকআপ বোঝাই করে ঢাকা যাত্রাবাড়ী নিয়ে বিক্রি করে।
সে পিকআপ ভ্যান নিয়ে হাজিগঞ্জ ও বলাখাল সেতু পার হয়ে কচুয়া রোড হয়ে যাত্রাবাড়ী মাছগুলো পাচার করছে। এর পূর্বে বেশ কয়েকবার পুলিশ তাকে মাছ সহ আটক করেন। তার বিরুদ্ধে মৎস্য আইনে বেশ কয়েকটি মামলাও রয়েছে। তার পরেও বন্ধ হয়নি তার জাটকা মাছ পাচার।