আজ  বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০

শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ওবায়দুল কাদের

 

শ্বাসকষ্ট নিয়ে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
শুক্রবার সকালে সেতুমন্ত্রীকে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া। তিনি জানান, শ্বাসকষ্ট অনুভব করায় সকালে ওবায়দুল কাদেরকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে নেওয়া হয়।
জানা গেছে, সকাল ১০টার দিকে ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে নির্ধারিত সম্পাদকমণ্ডলীর সভার যোগ দিতে যাওয়ার পরপরই তিনি অসুস্থবোধ করেন। পরে পৌনে ১১টার দিকে তাকে বিএসএমএমইউতে আনা হয়।
সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের উপ-প্রধান জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাসের জানিয়েছেন, ‘স্যারের ঠান্ডা লেগেছে। তাই তিনি হাসপাতালে এসেছেন। হাসপাতালে আসার পর তাকে নেবুলাইজ করা হয়। এছাড়া তার ব্লাড টেস্ট ও কফ টেস্ট করা হয়।’
হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, ওবায়দুল কাদেরের শ্বাসকষ্ট কমে যাওয়ার পাশাপাশি রক্তচাপও স্বাভাবিক রয়েছে। তবে আগামী ২৪ ঘণ্টা তাকে কার্ডিওলজি বিভাগের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) রাখা হবে।
এর আগে গত বছরের ২ মার্চও শ্বাসকষ্ট নিয়ে ঢাকার বিএসএমএমইউতে ভর্তি হয়েছিলেন ওবায়দুল কাদের। সেখানে এনজিওগ্রামে কাদেরের হৃদপিণ্ডের রক্তনালীতে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। এর মধ্যে একটি ব্লক স্টেন্টিংয়ের মাধ্যমে অপসারণ করেন চিকিৎসকরা।
অবস্থা কিছুটা স্থিতিশীল হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ৪ মার্চ এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয়। ভর্তি করা হয় মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে। সেখানে কার্ডিও থোরাসিক সার্জন ডা. শিভাথাসান কুমারস্বামীর নেতৃত্বে কাদেরের বাইপাস সার্জারি হয়।
এক মাস পর হাসপাতাল ছাড়লেও চিকিৎসকরা ‘চেকআপের জন্য’ আরও কিছু দিন তাকে সিঙ্গাপুরে থাকার পরামর্শ দেন। এরপর একটি বাসা ভাড়া করে সিঙ্গাপুরে অবস্থান করেন ওবায়দুল কাদের। পরে শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলে গত বছরের ১৫ মে দেশে ফেরেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক