আজ  শনিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২০

হাইমচরে নির্রাচনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনায় একাধিক মামলা

 

 

মোঃ হোসেন গাজী, হাইমচর

নির্বাচনকে কেন্দ্র আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনীত নৌকা মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আনারস মার্কার উভয় প্রার্থী হাইমচর থানায় পৃথক পৃথক ভাবে মামলা দ্বায়ে করে।

হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী নৌকার মার্কার সমর্থকদের ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আনারস মার্কার সমর্থকদের মাঝে পৃথক পৃথক সংঘর্ষে ঘটনায় হাইমচর থানায় উভয় পক্ষে মাঝে হাইমচর থানায় ৪টি মামলা দ্বায়ের করা হয়েছে।

মামলা সুত্রে জানা যায়,গত ২৩ ডিসেম্বর হাইমচর উপজেলা নীলকমল ইউনিয়নের মাঝির বাজারে আনারস মার্কার সমর্থক মোঃ নাছির গাজী ও নৌকার সমর্থক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সালাউদ্দিন সর্দারের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় মোঃ নাছির গাজী পিতাঃ মৃত: মুনছুর গাজী বাদী হয়ে ইউপি চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন সর্দারকে বিবাদী করে ৯ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ১৫/২০ জন অজ্ঞাতনামা দিয়ে মামলা দ্বায়ের করেন। মামলা নং ৩/৭৫।

হাইমচর উপজেলার তেলির মোড় ২৩ ডিসেম্বর দুপুরে নৌকা সমর্থক ও আনারসের সমর্থক প্রার্থীর সংঘর্ষের ঘটনায় আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা মার্কা পক্ষে মোঃ মনির হোসেন পাটওয়ারী পিতাঃ নুর মোহাম্মদ পাটওয়ারী বাদী হয়ে হাইমচর উপজেলা আলগী দক্ষিন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে মোঃ আঃ জলিল সরদারকে প্রধান আসামী করে ২৩ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ৩০/৪০ জন অজ্ঞাতনামা দিয়ে মামলা দ্বায়ে করেন। যার মামলা নং ৪/৭৬।

গত ২৪ ডিসেম্বর হাইমচর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নীলকমল ইউনিয়নে ঈশানবালায় নৌকার মার্কার সমর্থকদেরকে মারধোর বেইনীভাবে জনতাবদ্ধে আবদ্ধ অভিযোগে হাইমচর থানায় মোঃ বাদশা সরদার পিতাঃ মৃত কামাল সরদার বাদী হয়ে স্বতন্ত চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থক মোঃ সউদ আল নাসের ১নং আসামী করে ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে আরো ১৫/১৬ জন অজ্ঞাতনামা করে মামলা দ্বায়ে করেন। যার মামলা নং ৫/৭৭।